আপনি এখানে:Homeঅ্যাডভোকেসি ও ক্যাম্পেইনক্যাম্পেইনতামাক বিরোধী সংগঠন সমূহের পক্ষ্য থেকে তামাক কর বৃদ্ধির দাবী

তামাক বিরোধী সংগঠন সমূহের পক্ষ্য থেকে তামাক কর বৃদ্ধির দাবী

img 1২৭ জুন ২০১৯, ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির সাগর রুনী মিলনায়তনে বাজেটে তামাকজাত পণ্যের উপর কর কাঠামো সংস্কার করে ১০ শলাকা সিগারেটের সর্বন্মি মূল্য ৩৭ টাকার পরিবর্তে ৫০ টাকা নির্ধারণ করা; প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটে ৫ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ; তামাকজাত পন্যের উপর রপ্তানী শুল্ক আরোপ, করপোরেট সারচার্জ বৃদ্ধি ও স্বাস্থ্য উন্নয়ন সারচার্জ ২% বৃদ্ধি করার দাবী। সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান সুপ্র আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সুপ্র সভাপতি আবদুল আউয়াল, ড. নাসির উদ্দিন আহমেদ, এনবিআর এর সাবেক চেয়ারম্যান, সুপ্র কোষাধ্যক্ষ মঞ্জু রানী প্রমানিক, সিটিএফকে কর্মসূচী কর্মকর্তা আতাউর রহমান মাসুদ ও তামাক বিরোধী সংগঠনসমূহের নেতৃবৃন্দ। সম্মেলনে লিখিত আলোচনা পত্র উপস্থাপন করেন সুপ্র’র প্রকল্প সমন্বয়কারী মো. হাসনাইন।

বক্তারা বলেন যে, বিগত ১৩ জুন তারিখে মাননীয় অর্থমন্ত্রী বাজেট বক্তৃতায় তামাক কর সংক্রান্ত ঘোষণা নাগরিক সমাজকে হতাশ করেছে, যা তামাক নিয়ন্ত্রন ও ভবিষ্যত তামাকমুক্ত দেশ গড়ার জাতীয় নীতির সঙ্গে অসংগতিপূর্ন। প্রস্তাবিত বাজেটে স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিতকরনে তামাক-কর কাঠামো সংস্কার ও তামাক কর বৃদ্ধির দাবীতে ক্যাম্পেইন ফর টোবাকো ফ্রি কিডস এর সহযোগিতায় নাগরিক সমাজের সংগঠন সমূহের প্ল্যাটফর্ম, তামাক বিরোধী জোটের ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন, ঢাকা আহসানিয়া মিশন, প্রজ্ঞা, এসোসিয়েশন ফর কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট (এসিডি), ইয়ং পাওয়ার ইন সোশ্যাল একশন (ইপসা), তামাক বিরোধী নারীজোট (তাবিনাজ), বাংলাদেশ ইন্সিটিউট অব থিয়েটার আর্টস (বিটা) ও সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান - সুপ্র’র উদ্যোগে সংবাদ সম্মেলনটির আয়োজন করা হয়। সম্মেলনে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি, তামাক বিরোধী ও উন্নয়ন সংগঠনসমূহের প্রতিনিধি, সুপ্র ঢাকা ক্যাম্পেইন গ্রæপের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে ড. নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেন ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের সরকারের প্রস্তাবিত বাজেট অনুযায়ী বিগত বছরগুলোর তুলনায় মূল্যস্তরভেদে তামাক কোম্পানিগুলোর মুনাফা ৩১ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবে। এভাবে তামাক কোম্পানিগুলোকে ব্যবসা সম্প্রসারণের সুযোগ দিয়ে তামাক নিয়ন্ত্রণ কখনই সম্ভব নয়। সম্মেলনে তামাক মুক্ত বাংলাদেশ গড়তে চূড়ান্ত বাজেটে নিম্নলিখিত প্রস্তাবনাগুলো অর্ন্তভূক্ত করার জন্য পেশ করা হয়:

- প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটের সর্বনি¤œ মূল্য ৩৭ টাকার পরিবর্তে ৫০ টাকা নির্ধারণ করা;
- সরকারী রাজ আয় বৃদ্ধিতে নি¤œস্তরের সিগারেটের উপর বিদ্যমান ৫৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক ৫ শতাংশ বৃদ্ধি করে ৬০ শতাংশ এবং মধ্যম, উচ্চ ও প্রিমিয়াম স্তরে বিদ্যমান ৬৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক ৫ শতাংশ বৃদ্ধি করে ৭০ শতাংশ নির্ধারণ করা;
- প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটে ৫ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা;
- ফিল্টারবিহীন ২৫ শলাকা বিড়ির খুচরা মূল্য ৩৫ টাকা নির্ধারণ করে ৪৫% সম্পূরক শুল্ক ও ৬ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা;
- প্রতি ১০ গ্রাম জর্দার খুচরা মূল্য ৩৫ টাকা এবং প্রতি ১০ গ্রাম গুলের খুচরা মূল্য ২০ টাকা নির্ধারণ করা;
- অপ্রক্রিয়াজাত তামাকের বিদ্যমান ১০ শতাংশ রপ্তানি শুল্ক এবং প্রক্রিয়াজাত তামাকপণ্যের ওপর ইতিপূর্বে বিদ্যমান ২৫ শতাংশ রপ্তানি শুল্ক পুনর্বহাল করা;
- সকল প্রকার তামাকপণ্যের উপর স্বাস্থ্য উন্নয়ন সারচার্জ বৃদ্ধি (২%) করা;
- জনস্বার্থে তামাক কোম্পানিগুলোর উপকরণ কর রেয়াত গ্রহণ সুযোগ বাতিল করতে বিদ্যমান মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন, ২০১২ এর ৪৬ ধারার অন্তর্গত উপধারা ৩ এর দফা ঙ পুনর্বহাল করা।
- ব্রিটিশ আমেরকিান কোম্পানী খেকে সরকারের শেয়ার তুলে নেয়া এবং বোর্ড থেকে প্রতিনিধি প্রত্যাহার করা।

Go to top