আপনি এখানে:Homeঅ্যাডভোকেসি ও ক্যাম্পেইনক্যাম্পেইন

তামাক বিরোধী সংগঠন সমূহের পক্ষ্য থেকে তামাক কর বৃদ্ধির দাবী

img 1২৭ জুন ২০১৯, ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির সাগর রুনী মিলনায়তনে বাজেটে তামাকজাত পণ্যের উপর কর কাঠামো সংস্কার করে ১০ শলাকা সিগারেটের সর্বন্মি মূল্য ৩৭ টাকার পরিবর্তে ৫০ টাকা নির্ধারণ করা; প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটে ৫ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্ক আরোপ; তামাকজাত পন্যের উপর রপ্তানী শুল্ক আরোপ, করপোরেট সারচার্জ বৃদ্ধি ও স্বাস্থ্য উন্নয়ন সারচার্জ ২% বৃদ্ধি করার দাবী। সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান সুপ্র আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সুপ্র সভাপতি আবদুল আউয়াল, ড. নাসির উদ্দিন আহমেদ, এনবিআর এর সাবেক চেয়ারম্যান, সুপ্র কোষাধ্যক্ষ মঞ্জু রানী প্রমানিক, সিটিএফকে কর্মসূচী কর্মকর্তা আতাউর রহমান মাসুদ ও তামাক বিরোধী সংগঠনসমূহের নেতৃবৃন্দ। সম্মেলনে লিখিত আলোচনা পত্র উপস্থাপন করেন সুপ্র’র প্রকল্প সমন্বয়কারী মো. হাসনাইন।

বিস্তারিত পড়ুন...

জাতীয় পর্যায়ে সুপ্র আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা।

মৌলিক চাহিদা নয়, স্বাস্থ্যকে মৌলিক অধিকার হিসেবে সংবিধানে অন্তর্ভূক্ত করতে হবে।

img 1“আমরা সবাই হবো সচেতন; আর নয় বাহক-বাহিত রোগে মরণ”-এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান-সুপ্র সারা দেশের ৪৫টি জেলার পাশাপাশি ঢাকায় কেন্দ্রীয়ভাবে গত ৭ এপ্রিল ২০১৪ সোমবার, বেলা ১১:০০ টা থেকে ১২:০০ টা পর্যন্ত শাহবাগ, জাতীয় যাদুঘরের সামনে এক মানববন্ধন কর্মসূচি’র আয়োজন করে। মানববন্ধনে বিভিন্ন সমমনা সংগঠন , সুপ্র ঢাকা ক্যাম্পেইন গ্রুপের প্রতিনিধিগণ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীগণ ঐক্য ও সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য প্রদান করেন। মানববন্ধনে বক্তারা জাতীয় বাজেটে স্বাস্থ্যখাতে কমপক্ষে জিডিপি-এর ৩ শতাংশ অথবা মোট বাজেটের ১০ শতাংশ বরাদ্দ দেয়ার পাশাপাশি বাজেটের সুষম বন্টন এবং বাজেট ব্যবহারে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার এবং স্বাস্থ্য খাতের বাণিজ্যীকরণ বন্ধ করার দাবি জানান। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বিশ্বে বিভিন্ন সংক্রামক রোগের মধ্যে ১৭ ভাগই হচ্ছে বাহক-বাহিত। বিশ্বে ২০১০ সালে বাহক বাহিত রোগে ৬ লক্ষ ৬০ হাজার মানুষ মারা যায় যার অধিকাংশই শিশু। বিশ্বব্যাপি ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার, যাতায়াত বৃদ্ধি, অনিয়ন্ত্রিত নগরায়ন, কৃষি ব্যবস্থার পরিবর্তন, বনাঞ্চল ধ্বংস, পারিপার্শ্বিক পরিবেশের পরিবর্তন ইত্যাদি বাহক বাহিত রোগ সমূহের ঝুঁকি ও বিস্থারের অন্যতম কারণ।

বিস্তারিত পড়ুন...
Go to top