আপনি এখানে:Homeঅ্যাডভোকেসি ও ক্যাম্পেইনঅ্যাডভোকেসি

সুপ্র আয়োজিত জাতীয় সংলাপে আসন্ন ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে দরিদ্র ও প্রান্তিক মানুষের জীবনমান উন্নয়নে বিশেষ বরাদ্দ সহ শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও কৃষি ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার প্রদানের দাবী।

img 1জাতীয় বাজেটে দরিদ্র ও প্রান্তিক মানুষের জীবনমান উন্নয়নে ও অসমতা কমানোর স্বার্ত্থে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও সামাজিক সুরক্ষাকে অগ্রাধিকার দিয়ে বাজেটের কমপক্ষে ২০% শিক্ষায়, ১০% স্বাস্থ্য সেবায় ও ২০% সমাজিক সুরক্ষায় প্রদান করার দাবি জানানো হয়। বিএমএ ভবনে ‘স্থায়ীত্বশীল উন্নয়ন অভিযাত্রায় কাউকে পেছনে রাখা যাবেনা’ - শীর্ষক সংলাপে স্থানীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত নাগরিক সমাজের সুপারিশমালার ভিত্তিতে সুপ্র চেয়ারপার্সন আবদুল আউয়ালের সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় সংলাপে মূখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্ণর ড. আতিউর রহমান। সংলাপে আলোচনাপত্র পাঠ করেন সুপ্র কোষাধ্যক্ষ মঞ্জু রাণী প্রামাণিক।

বিস্তারিত পড়ুন...

তরুণ-যুবকদের সম্পৃক্ত করে প্রযুক্তিনির্ভর কর প্রদান ব্যবস্থা গড়ে তোলার আহ্বান

img-1২৩ ডিসেম্বর ২০১৮ সিরডাপ মিলনায়তনে সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান-সুপ্র’র আয়োজনে বৈষম্য দূরীকরণে প্রগতিশীল কর ব্যবস্থা শীর্ষক জাতীয় সংলাপে প্রধাণ অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর আতিউর রহমান এই আহ্বান জানান।সংলাপে বিশেষ অতিথি ছিলেন অক্সফ্যাম ইন বাংলাদেশের ক্যাম্পেইন অ্যান্ড কমিউনিকেশন ম্যানেজার এস এম মনজুর রশীদ। সংলাপে বিভিন্ন নাগরিক সংগঠন, উন্নয়ন সংস্থা, সুপ্র’র জাতীয় পরিষদ, জেলা কমিটি, ক্যাম্পেইন ফর টোবাকো ফ্রি কিডস (সিটিএফকে), তামাকবিরোধী জোটসহ সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সংলাপে করনীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন অংশগ্রহণমূলক করা, তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি ও প্রাতিষ্ঠানিক বিকেন্দ্রীকরণ, পরোক্ষ ’অ-প্রগতিশীল’ কর বিশেষ করে ভ্যাটের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে প্রত্যক্ষ ‘প্রগতিশীল’ আয়কর বৃদ্ধি করা, নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য সহজতর রিটার্ন দাখিলের ব্যবস্থা করা, কর প্রশাসনকে জনগণের কাছে জবাবদিহির আওতায় আনা, কর সংক্রান্ত তথ্য উন্মুক্ত ও স্বচ্ছ রাখা এবং তা নিয়মিত হালনাগাদ করার দাবি উত্থাপিত হয়। গণতান্ত্রিক সমাজ বিনির্মাণ, সামাজিক-রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য অনৈতিক অন্যায্যতা ও বৈষম্য দূরীকরণে প্রগতিশীল কর সংস্কারের লক্ষ্যে সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান (সুপ্র) ২০১০ সাল থেকে ৪৫টি জেলায় অধিপরামর্শ সভা ও প্রচারণার কাজ চালিয়ে আসছে।

বিস্তারিত পড়ুন...

পাতা 1 এর 4

Go to top